বৃষ্টি কমে শীত বাড়বে

মাঘের শীতে সারা দেশে বিভিন্ন জেলায় থেমে থেমে হয়েছে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি। আবার কোথাও হয়েছে আষাঢ়ের ন্যায় ঝুম বৃষ্টি। তাপমাত্রা কয়েকদিনের তুলনায় কিছুটা বাড়লেও বেশ কিছু স্থানে বৃষ্টির কারণে অনুভূত হচ্ছে শীত। মাঘ মাসে এমন বৃষ্টি খুব কমই দেখা যায়। গতকাল ছিল ছুটির দিন তাই রাজধানী রাস্তাঘাটে লোকজনের উপস্থিতি ছিল কম। অনেকে আবার বৃষ্টিটাকে উপভোগ করেছে বাসায় বসেই। অন্যদিকে শীতল বৃষ্টির ফোঁটা আর ঠান্ডা বাতাসে কাবু কর্মজীবী মানুষ। আগামী দুুদিন এই অবস্থা থাকতে পারে বলে

থাকবে বৃষ্টি, শুরু হচ্ছে শৈত্যপ্রবাহ

রাজধানীসহ সারাদেশে শুক্রবার (৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত বৃষ্টির সাথে বইছে দমকা হাওয়া। এমন অবস্থায় বৃষ্টি আরও একদিন থাকতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। বৃষ্টির পর কমবে তাপমাত্রা, বাড়বে শীতের তীব্রতা। শুরু হবে শৈত্যপ্রবাহ। আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, ঢাকা, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা ঝড়ো হাওয়াসহ হালকাথেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সাথে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী বর্ষণ হতে

বৃষ্টি ও শীত নিয়ে যে পূর্বাভাস দিল আবহাওয়া অফিস

হঠাৎ করেই শীতের আ’মেজের মধ্যে বৃষ্টিতে স্থবির হয়ে পড়েছে জনজীবন। শুক্রবার (৪ ফেব্রুয়ারি) সকাল থেকেই চলছে থেমে থেমে বৃষ্টি। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে রেকর্ড বৃষ্টিপাতও হয়েছে। এই বৃষ্টিপাত আগামীকাল পর্যন্ত থাকতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। সেইসঙ্গে শনিবার থেকে কমতে শুরু করবে রাতের তাপমাত্রা। আবহাওয়াবিদ মো. তরিফুল নেওয়াজ কবির জানিয়েছেন, হঠাৎ করে ওয়েস্টার্ন ডিস্টাবেঞ্জের (পশ্চিমা লঘুচাপ) কারণে বৃষ্টিপাতের প্রবণতা বেড়ে গেছে। উত্তরাঞ্চলে মাঝারি ধরনের ভা’রী বর্ষণ হচ্ছে। রাজধানীতেও বেড়েছে বৃষ্টিপাত। তবে কাল থেকে এই প্রবণতা কমে

বৃষ্টি থাকতে পারে আরও তিনদিন

শৈত্যপ্রবাহ কেটে যাওয়ায় দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টির প্রবণতা বেড়েছে। তবে আগামী তিনদিন বৃষ্টির প্রবণতা থাকতে পারে। এই তিনদিনের শেষভাগে বৃষ্টির এমন প্রবণতা কেটে যেতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, বৃষ্টিপাতের প্রবণতায় এসময়ে সারাদেশে রাতের তাপমাত্রা অপরিবর্তিত থাকতে পারে। তবে দিনের তাপমাত্রা ২ থেকে ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত কমে যেতে পারে। শুক্রবার (৪ ফেব্রুয়ারি) সকাল থেকেই ঢাকার আকাশ মেঘলা ছিল। বেলা গড়াতেই শুরু হয় বৃষ্টি। রাজধানীর ধানমন্ডি, ফার্মগেটসহ বিভিন্ন এলাকায় হালকা থেকে

মাঘেই ‘কালবৈশাখির’ রূপ, বৃষ্টিতে ভিজল ঢাকাও

মাঘের শীতের মধ্যে বৃষ্টি হচ্ছে দেশের বিভিন্ন স্থানে। রাজধানীতেও নেমেছে বৃষ্টি, সেই সঙ্গে কনকনে ঠান্ডা বাতাস। দিনদুপুরে সন্ধ্যার আবহ বিরাজ করছে ঢাকায়। বৃহস্পতিবার রাতেও (৩ ফেব্রুয়ারি) ঢাকায় বৃষ্টি হয়। শুক্রবার (৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুর না গড়াতেই কালবৈশাখির ঝোড়ো হাওয়ার সঙ্গে আঁধার ঘনিয়ে নেমে আসে বৃষ্টি। আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, শুক্র ও শনিবার দেশের বিভিন্ন জায়গায় বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে দক্ষিণাঞ্চলের নদী অববাহিকায় মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা পড়তে পারে। আজ সারা দেশে রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকলেও

দেশের বিভিন্ন জেলায় বৃষ্টিপাত, চলতে পারে রোববার পর্যন্ত

রংপুর, দিনাজপুর, মেহেরপুর, চুয়াডাঙ্গাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় সকাল থেকে মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টি হচ্ছে। কোথাও কোথাও হচ্ছে বজ্রসহ বৃষ্টি। এতে বেড়েছে শীতের তীব্রতা। আবহাওয়া অফিস বলছে, লঘুচাপের প্রভাবে বেড়েছে বৃষ্টিপাতের প্রবণতা। আবহাওয়া অফিস ও স্থানীয়রা জানিয়েছেন মধ্যরাত থেকে রংপুরে মুষলধারে বৃষ্টি হচ্ছে। এর ফলে জমে গেছে বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টির পানি। বৃষ্টির কারণে ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা করছেন ফসলের। আবহাওয়া অফিসের তথ্য মতে আগামী ২-১ দিন থাকতে পারে বৃষ্টি ও মেঘলা আকাশ। আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে সকাল ৯টা

হতে পারে শিলাবৃষ্টি-বজ্রঝড়

চলতি মাসের (ফেব্রুয়ারি) শেষের দিকে শিলাবৃষ্টিসহ বজ্রঝড় হতে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর। এ মাসে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বৃষ্টি হতে পারে। একই সঙ্গে ফেব্রুয়ারিতে একটি মৃদু থেকে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে বলেও পূর্বাভাস দিয়েছে সংস্থাটি।দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাস দিতে আবহাওয়া অধিদপ্তরের গঠিত বিশেষজ্ঞ কমিটি এ পূর্বাভাস দিয়েছে। বুধবার (২ ফেব্রুয়ারি) আবহাওয়া অধিদপ্তরের ঢাকার ঝড় সতর্কীকরণ কেন্দ্রে ও ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কমিটির নিয়মিত বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন অধিদপ্তরের পরিচালক (চলতি দায়িত্ব) ও বিশেষজ্ঞ

তিন বিভাগের বৃষ্টির সম্ভাবনা

গত ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে তাপমাত্রা বেড়েছে প্রায় ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। শীতের প্রভাব কিছুটা কমলেও তিন বিভাগের বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর। এসব এলাকায় মেঘ থাকায় শীত কম পড়বে। আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাস বলছে, আগামীকাল বুধবারের মধ্যে দেশের বেশির ভাগ এলাকার আকাশে মেঘ আর দৃষ্টিসীমাজুড়ে কুয়াশা বাড়তে পারে। খুলনা, চট্টগ্রাম ও বরিশাল বিভাগের দু–একটি স্থানে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হতে পারে। আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ আবুল কালাম মল্লিক বলেন, আগামী দুই দিন গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হতে পারে।

২১ জেলায় বইছে শৈত্যপ্রবাহ, দিনে তাপমাত্রা বাড়তে পারে

দেশের ২১ জেলায় বইছে শৈত্যপ্রবাহ। এটি অব্যাহত থাকতে পারে আগামীকালও। রাতের তাপমাত্রা আরও কিছুটা কমতে পারে। তবে কিছুটা বাড়তে পারে দিনের তাপমাত্রা। দেশের বেশিরভাগ এলাকার আকাশ মেঘলা থাকতে পারে। এই আবহাওয়া অব্যাহত থাকতে পারে আরও একদিন। এরপর তাপমাত্রা বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর। আজ রবিবার (৩০ জানুয়ারি) টাঙ্গাইল, গোপালগঞ্জ, ফরিদপুর, মাদারীপুর, রাঙ্গামাটি, ফেনী, মৌলভীবাজার, যশোর, কুষ্টিয়া, চুয়াডাঙ্গা, বরিশাল এবং ভেলা জেলা ও সীতাকুণ্ড উপজেলাসহ রংপুর এবং রাজশাহী বিভাগের ওপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের

চলমান শৈত্যপ্রবাহ তীব্র হতে পারে বৃষ্টি

রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশেই জেঁকে বসেছে শীত। শুক্রবার দেশের বিস্তৃর্ণ অঞ্চলজুড়ে শুরু হয় মৃদু থেকে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ। শনিবার তা আরো নতুন নতুন অঞ্চলে বিস্তৃত হয়েছে। এটি আর বিস্তৃত হওয়ার সম্ভাবনা নেই। তবে চলমান শৈত্যপ্রবাহ আরো তীব্র হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। শনিবার আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, আগামী দু-তিনদিনের মধ্যে শৈত্যপ্রবাহ কেটে যেতে পারে। একই সঙ্গে ফেব্রুয়ারির শুরুতে অর্থাৎ মাঘ মাসের শেষ সপ্তাহে বৃষ্টির দেখাও মিলতে পারে। দেশের বেশিরভাগ অঞ্চলজুড়েই এখন বইছে শৈত্যপ্রবাহ। তবে আপাতত আর শীতের